শিব লিঙ্গে কি অর্পণ করলে কি ফল পাবেন

41

শ্রাবন মাস শিব কৃপা লাভের শ্রেষ্ট সময়|শ্রাবন মাসের কিছু বিশেষ শাস্ত্রীয় পদ্ধতি তে শিবের অভিষেক করলে ও কিছু বিশেষ সামগ্রী রীতি মেনে শিব লিঙ্গে অর্পন করলে আপনার জীবনের অনেক সমস্যা দূর হতে পারে|আজকের পর্বে আসুন জেনে নিই শিব লিঙ্গে কি অর্পণ করলে কি ফল পাবেন|বিয়েতে বিলম্ব হলে বা কোনও না-কোনও কারণে বাধা উৎপন্ন হলে শিবরাত্রির দিনে শিবকে জাফরান মিশ্রিত দুধ দিয়ে অভিষেক করুন। এর পর শিবলিঙ্গে ১০৮টি বেলপাতা অর্পণ করুন। শাস্ত্র মতে শিবলিঙ্গে আতর অর্পণ করলে ব্যক্তির বিচারধারা নির্মল হয়। এর ফলে ব্যক্তি কোনও ভুল পদক্ষেপ করা থেকে বিরত থাকবে। আতরকে অত্যন্ত উপকারী মনে করা হয়। শান্তি লাভের জন্যও শিবের পুজোয় আতর ব্যবহার করা উচিত। পরিবেশ শুদ্ধ রাখে আতর।শিবকে গঙ্গাজল অর্পণ করলে দোষ শান্ত হয়। এর ফলে ব্যক্তির স্বাস্থ্য ভালো থাকে। জীবনে সুখ-সম-সমৃদ্ধি ও শান্তি বজায় রাখার জন্য শিব পুজোয় গঙ্গাজল ব্যবহার করতে ভুলবেন না।ভাঙ শিবের প্রিয়। শিব পুজোয় ভাঙ ব্যবহার করলে ব্যক্তির চারিত্রিক দোষ-ত্রুটি দূর হয়|চন্দন শিবের প্রিয়। শিবলিঙ্গে চন্দন অর্পণ করলে এটি আপনার ব্যক্তিত্বকে আরও আকর্ষক করে তুলবে। এর প্রভাবে মান-সম্মান বৃদ্ধি পাবে। শিব পুজোয় চন্দন প্রয়োগ করলে সর্প শান্তি ও সমস্ত দোষ নিবারণ সম্ভব।শিবকে মধু অর্পণ করলে ভাষায় মাধুর্য দেখা যাবে। মধু অর্পণের ফলে জীবনে ধন-সম্পত্তির বৃদ্ধি সম্ভব। পাশাপাশি মধু দিয়ে পুজো করলে সমস্ত রোগ দূর হবে।শিবলিঙ্গে ঘি অর্পণ করাও অত্যন্ত শুভ। এ ক্ষেত্রে গাওয়া ঘিকেই শিবের পুজোয় সর্বোৎকৃষ্ট মনে করা হয়। শিবলিঙ্গে ঘি অর্পণ করলে শক্তি সঞ্চয় করা যায়। পরাক্রম ও সাহস বৃদ্ধি হয়। পাশাপাশি কঠিন পরিস্থিতি মোকাবিলার শক্তি লাভ করতে পারেন শিব ভক্তরা।শিব পুজোয় কাঁচা দুধের বিশেষ ব্যবহার লক্ষ্য করা যায়। কাঁচা দুধ শীতল হওয়ায় এ দিয়ে শিবের অভিষেক করলে মহাদেবও শীতলতা লাভ করেন। শিব পুজোয় দুধ ব্যবহার করলে ব্যক্তি জীবনে সুখ ও শান্তি লাভ করতে পারবে। পাশাপাশিঈশ্বরে বিশ্বাসীরা অনেকেই বাড়িতে শিবলিঙ্গর পুজো করে থাকেন। তবে বাস্তু অনুযায়ী শ্রাবণ মাসে বাড়িতে একটি বিশেষ শিবমূর্তি রাখুন বাড়ির পূর্ব দিকে মার্বেলের তৈরি শিবের অর্ধনারীশ্বর অবতারের মূর্তি রেখে পুজো করলে ভাগ্য সহায় হয়।বাড়িতে তুলসি গাছ না থাকলে তুলসির চারা রোপনের এটাই আদর্শ মাস। বাড়ির উত্তর দিকে রাখবেন তুলসি গাছ। এতে বাড়িতে শুভ শক্তির আগমন ঘটে। বলা হয়, অবিবাহিত মহিলারা বিয়ের জন্য ভাল পাত্রের সন্ধানও পান|শ্রাবণ মাসে জল দিয়ে রুদ্রাভিষেক করাকেও শুভ মনে করা হয়। শারীরিক অসুস্থতা থাকলে শ্রাবণ মাসে জল দিয়ে রুদ্রাভিষেক করুন।ভালো ফল পাবেন। আবার সরষের তেল দিয়ে শিবের রুদ্রাভিষেক করারও বিশেষ মাহাত্ম্য রয়েছে। জ্যোতিষ শাস্ত্র মতে, শ্রাবণ মাসে সরসের তেল দিয়ে শিবের অভিষেক করলে শনি গ্রহের দোষ দূর হয়।শাস্ত্র মতে শিব পুজো করুন|ফিরে আসবো আগামী পর্বে শিব ও শ্রাবন মাস সংক্রান্ত আলোচনা নিয়ে|পড়তে থাকুন|ভালো থাকুন|ধন্যবাদ|