গুরু কথা – মহা যোগী পাহাড়ি বাবা

189

পন্ডিতজি ভৃগুশ্রী জাতক

ভারতের আধ্যাত্মিক জগতে অন্যতম উজ্জ্বল নক্ষত্র পাহাড়ি বাবা। পাহাড়ি বাবা তার সন্ন্যাস জীবনে লোক মুখে প্রচারিত নাম। পাহাড়ি বাবার সন্ন্যাস পূর্ব জীবন সম্পর্কে খুব বেশি তথ্য পাওয়া যায়না তবে তার জীবনের বহু অলৌকিক ঘটনা আজও লোকের মুখে মুখে ফেরে যার মধ্যে দুয়েকটি আজ আপনাদের জানাবো।সর্বদা হিমালয়ের দুর্গম পাহাড়ি অঞ্চলে ধ্যান মগ্ন থাকার জন্য বাবার নাম হয় পাহাড়ি বাবা।শোনা যায় একদিন শ্রী শুকদেব বাবাজির স্বপ্নে আবির্ভূত হয়ে বললেন, “এই জায়গার নীচে আমার একটি প্রাচীন বিগ্রহ আছে, এটি আবিষ্কার করুন এবং এটি স্থাপন করুন।” জেগে উঠে বাবা জায়গাটি খনন করেছিলেন এবং সেদিন ছিলো বৈশাখ অমাবস্যা বাবা খাক চক নামক সেই স্থানে শাস্ত্রীয় নিয়ম মেনে শ্রী শুকদেবের শ্রীবিগ্রহ প্রতিষ্ঠা করেন।শোনা যায় পাহাড়ি বাবা একবার এক ভক্তের সাথে গঙ্গাসাগর যাত্রা করেছিলেন জল পথে জাহাজে পৌঁছতে হয় সাগর দ্বীপে বতখন বাবার বয়স ছিল একশোর বেশি তার সাথে ক্ষীণকায় শরীর । এই দেখে জাহাজের ক্যাপ্টেন তার বয়স এবং শারীরিক কাঠামোর কথা বলে বাবাকে জাহাজে চড়তে নিষেধ করেছিলেন।সেই সময়ে গঙ্গা নদী তীরবর্তী সৈকতে পড়ে ছিল বটবৃক্ষের বিশাল কাণ্ড। বাবা সেই বিশাল কাণ্ডটা মাথায় তুলে নিয়ে ক্যাপ্টেনকে জিজ্ঞেস করলেন, “আমাকে বলুন, এটা কোথায় রাখব?” ক্যাপ্টেন নিজের চোখকে বিশ্বাস করতে পারছেন না।কিভাবে এক বৃদ্ধ সাধু এই বিশাল কান্ড এই ভাবে তুলতে পারে তা তার বোধ গম্য হয়নি। তবে তিনি বোঝেন বাবা কোনো সাধারণ ব্যাক্তি নন তিনি সাথে সাথে বাবার চরণে আত্মসমর্পণ করলেন। বাবা তাকে ক্ষমা করেন এবং বলেন “কোনও সাধুকে তার বার্ধক্য বা দুর্বলতার জন্য উপহাস করবেন না, তিনি শ্রী রামের শক্তিতে চলেন”।পাহাড়ি বাবা সম্পর্কে আরো একটি অদ্ভুত এবং অলৌকিক ঘটনার কথা আজ বলবো।বাবা তখন বৃন্দাবনে একবার একজন ভক্ত দীক্ষা নেয়ার আশায় বাবার কাছে আসছিলো । কিন্তু বৃন্দাবনে পৌঁছানোর আগেই বাবা সমাধি গ্রহণ করেন । বৃন্দাবন এসে সব শুনে মনের দুঃখে সেই ভক্ত খাক চকে বাবার সমাধিতে অন্ন-জল ছাড়াই বসে রইলেন। এই ভাবে তিন দিন অতিক্রান্ত হয় চতুর্থ দিনে বাবা অলৌকিকভাবে সমাধি থেকে আবির্ভূত হন এবং সেই ভক্তকে সম্পূর্ণ শাস্ত্রীয় পদ্ধতিতে দীক্ষা দেন।বাবার অসংখ্য ভক্ত শিষ্য আজও রয়েছে। পাহাড়ি বাবার প্রয়াণের পর তার তারা বাবার সাধন মার্গ অনুসরণ করেন এবং আজও পাহাড়ি বাবা তার শিষ্য ও ভক্ত দের সব বিপদ ও প্রতিকূলতাথেকে রক্ষা করেন বলে তাদের বিশ্বাস।ফিরে আসবো আগামী পর্বে।অন্য কোনোগুরুর জীবনী ও অলৌকিক ঘটনায় সমৃদ্ধ উপস্থাপনা নিয়ে। পড়তে থাকুন।ভালো থাকুন। ধন্যবাদ।