পুরান কথা – শিব পুজোর ফুল

33

শ্রাবন মাসে বিশেষ কিছু উপাচার ও শিবের প্ৰিয় ফুল দিয়ে তার আরাধনা করলে সহজেই শিব সন্তুষ্ট হন ও শিব কৃপা লাভ হয়|শাস্ত্রীয় কিছু উপাচার নিয়ে আগেই বলেছি আজ আসুন দেখে নিই কোন ফুল ব্যবহার করবেন শিব পুজোয়|শিবপূজায় কেতকি ফুল অর্পণ করা নিষিদ্ধ|কারন কেতকী আদি শিব লিঙ্গ অনুসন্ধানকালে ব্রম্ম্হার হয়ে মিথ্যে সাক্ষী দিয়ে ছিলো এবং তাতে রুষ্ঠ হয়েছিলেন দেবাদিদেব|বেশ কিছু ফুল আছে যেগুলো শিবের অত্যান্ত প্ৰিয় এবং সেগুলি অর্পণ করলে তিনি সন্তুষ্ট হন ও মনোস্কামনা পূর্ন করেন|বেল ফুলশিবের সবচেয়ে প্রিয় ফুল হল বেলগাছের ফুল। ভুল করে এই ফুলকে সুগন্ধী বেল ফুলের সঙ্গে গুলিয়ে ফেলবেন না যেন।দুটি সম্পূর্ণ আলাদা|ধুতরো ফুল ধূতরা ফুল মহাদেবের খুব প্ৰিয় ফুল তাই তাই ধুতরো ফুল ও বেলা পাতা মহাদেবের পুজোয় ব্যবহার করুন|অপরাজিতামহাদেবের অপর নাম নীলকণ্ঠ। সমুদ্র মন্থনের সময় যে প্রচণ্ড বিষ উঠেছিল, সমগ্র সৃষ্টিকে তার থেকে বাঁচাতে সেই বিষ নিজের কণ্ঠে ধারণ করেছিলেন মহাদেব। ফলে তাঁর সারা শরীর নীলবর্ণ ধারণ করে। অপরাজিতা ফুলের রং ঠিক মহাদেবের গাত্রবর্ণের মতোই। মহাদেবের অপার সহ্য শক্তির প্রতীক এই ফুল শিব পুজোয় ব্যবহৃত হয়।আপনারাও অপরাজিতা ফুল মহাদেবের পুজোয় ব্যাবহার করুন|আকন্দমনে করা হয় আকন্দ ফুলের গন্ধে হারানো স্মৃতি ফিরে আসে। আকন্দ ফুল দিয়েও মহাদেবের পুজোর রীতি প্রচলিত|আকন্দ ফুলের মালা শিব লিঙ্গে অর্পণ করুন মহাদেবে সন্তুষ্ট হবেন|কল্কেহলুদ রঙের কল্কে ফুলের গাঢ় হলুদ রং ত্যাগের প্রতীক। দেবাদিদেব মহাদেব নিজেও ত্যাগ ও তিতিক্ষার প্রতীক। তাই কল্কে ফুল দিয়ে শিবপুজো করা হয়ে থাকে|শ্রাবন মাসে শিবের পুজোয় কল্কে ফুল রাখুন ভালো ফল পাবেন|জুঁইছোট্ট ছোট্ট জুঁই ফুলের অপূর্ব মিষ্টি সুবাস মহাদেবকে উত্‍সর্গ করা হয়ে থাকে। ক্ষমার প্রতীক দেবাদিদেবের অত্যন্ত পছন্দের এই ফুল|মহাদেবের উদ্দেশ্যে জুঁই ফুল নিবেদন করলে তিনি সন্তুষ্ট হন|শিবের প্ৰিয় শ্রাবন মাসে এই ফুল গুলির পাশাপাশি মহাদেবের পুজোয় ব্যবহার করুন বেলপাতা, গঙ্গা জল, মধু , দুধ ও আতর এবং সম্ভব হলে মহাদেবের উদ্দেশ্যে রুদ্রাক্ষ অর্পণ করুন রুদ্রাক্ষ মহাদেবের খুব প্ৰিয়|যাদের গৃহে শিব লিঙ্গ আছে ও নিয়মিত পুজো হয় তারা সংসারের কল্যানে মহাদেবের প্ৰিয় কয়েকটি বস্তু মহাদেবের উদ্দেশ্যে নিবেদন করতে পারেন যেমন ধাতব নাগ, ত্রিশূল এবং ডমরু|আগামী পর্বে শিব সংক্রান্ত অন্য কোনো বিষয় সাথে শাস্ত্রীয় ব্যাখ্যা নিয়ে আবার ফিরে আসবো পড়তে থাকুন|ভালো থাকুন|ধন্যবাদ|