পুরান কথা – শিবের ধ্যানের রহস্য

29

শিব স্বয়ং দেবাদিদেব|তিনি দেবতাদের আরাধ্যা|শ্রাবন মাস এবং চৈত্র মাসের বিশ্ববাসী তার পুজো করে তার কাছে নিজের মনোস্কামনা জানায়|কিন্তু শিব কে আমরা ধ্যান মগ্ন অবস্থায় দেখি সর্বদা|তাহলে শিব কার ধ্যান করেন? উত্তরে আছে আমাদের শাস্ত্রে|আজ সেই উত্তর দেবো|সনাতন ধর্মে দেবতা ও দেবী কয়েক কোটি হতে পারে কিন্তু ভগবান একজনই তিনি কৃষ্ণ, আমরা জানি যিনি বিষ্ণু তিনিই কৃষ্ণ, তিনিই নারায়ন |তিনিই শিবের আরাধ্য|শিব তার ধ্যানেই মগ্ন থাকেন|শিব নিজে একজন পরম বৈষ্ণব|এই শ্রেষ্টত্ব নিয়ে অবশ্য শৈব্য ও বৈষ্ণবদের মাঝে মাঝেই বিরোধ দেখা দেয়|তবে সব বিবাদের সমাধান শিব নিজেই দিয়েছেন|দেবী পার্বতী একদিন শিব কে প্রশ্ন করেছিলেন যে তিনি কার ধ্যান করেন, উত্তরে শিব বলেন তিনি রামের ধ্যান করেন, অবশ্য তখন রামের জন্মই হয়নি, কিন্তু অন্তর্যামী মহাদেব ভগবানের লীলা জানতেন|রাম বিষ্ণুরই অবতার এতো আমরা সবাই জানি|একবার এক ভক্ত শ্রীল প্রভুপাদ কেও জিগেস করেছিলেন যে বৈষ্ণবরা শিব পুজো করতে পারবে কিনা, উত্তরে প্রভুপাদ হেসে বলেছিলেন, নিশ্চই পারবে, শিব নিজেই তো পরম বৈষ্ণব|শুধু তাই নয় আদি কালে বৈষ্ণব ধর্ম সৃষ্টিতেই শিবের বড়ো ভূমিকা রয়েছে|শিবের আরাধ্যা ভগবান বিষ্ণু|তিনিই পরমেশ্বর এমনকি কিছু শাস্ত্র অনুসারে শিবের জন্মই হয়েছে বিষ্ণুর ভ্রু যুগলের মধ্য ভাগ থেকে|ভগবান বিষ্ণু ও শিব কে প্রনাম জানিয়ে শেষ করছি আজকের আলোচনা|চলবে শিব ও শ্রাবন মাস নিয়ে আলোচনা|পড়তে থাকুন|ভালো থাকুন|ধন্যবাদ|