তন্ত্র রহস্য – তন্ত্রশাস্ত্রের গোড়ার কথা

189

তন্ত্র বিষয়টি যুগ যুগ ধরে বহু রহস্য, বহু তত্ত্বকে নিজের মধ্যে গোপন করে রেখেছে যার মধ্যে তন্ত্রের বহু জটিল ও কঠিন বিষয় জনসমক্ষে ব্যাখ্যা করা বা আলোচনা করা সম্ভব নয়|তবে কিছু বিষয় আছে যা আজ অনেকেই জানেন বা জানতে চান|তন্ত্র শাস্ত্রের সাথে জড়িত এমনই কিছু বিষয় নিয়ে আজ থেকে ধারাবাহিক ভাবে লিখবো তার পাশাপাশি থাকবে বিখ্যাত কিছু তন্ত্র তন্ত্র সাধক ও তাদের সাধনার কথা|প্রথমেই বলি তন্ত্র ভারতের অতিপ্রাচীন এবং গুরু পরম্পরার একটি গুপ্ত বিদ্যা। এটি গুরু পরম্পরা বিদ্যা বলে প্রকৃত গুরুর খোঁজ করতে হয়। দীক্ষা ছাড়া এ শাস্ত্র সম্পর্কে সহজে কেউ কাউকে কিছু ব্যক্ত করেন না।বৌদ্ধতন্ত্র ও সনাতনধর্মীয় তন্ত্রের মধ্যে বস্তুত কোনও উল্লেখযোগ্য প্রভেদ নেই। আসলে সেভাবে দেখলে তন্ত্র কোনও ধর্মীয় মতবাদ নয়, তন্ত্র এক সাধনপদ্ধতি মাত্র। মনুষ্যদেহকে এক যন্ত্রস্বরূপ বিচার করে সেই সূত্রে এক গুহ্যসাধনপদ্ধতিকেই তন্ত্র বলে।সংক্ষেপে তন্ত্র হচ্ছে “সৃষ্টির পরিচালনার নিয়ম ” । মহাদেব বা শিবের ডমরু থেকে তন্ত্রের উৎপত্তি । সতী বা দেবি দূর্গার দশ হাতে আছেন দশ মহাবিদ্যা এই দশমহাবিদ্যার উপর ভিত্তি করেই অনেকটা তন্তশাস্ত্র গড়ে উঠেছে |তন্ত্রসাধনার মূল স্রোতটি যে আচারপদ্ধতিকে আশ্রয় করে গড়ে ওঠে, তা হলো পঞ্চ ম-কার ক্রিয়া|আগামী পর্ব গুলিতে এই ক্রিয়া পদ্ধতি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো|আপাতত বলে রাখি বামা ক্ষেপা থেকে রামকৃষ্ণ ও পরবর্তীতে কৃষ্ণানন্দ আগমবাগীশ সবাই প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ ভাবে এই ক্রিয়ার অনুসারী|আক্ষেপের বিষয় প্রাচীন ভারত থেকে বহু মূল্যবান পুঁথি বিদেশী পরিব্রাজকরা তাঁদের দেশে নিয়ে চলে গেছেন।তাই তন্ত্র শাস্ত্রের বহু মনি মানিক আমরা হারিয়েছি|আবার পরবর্তী কালে তন্ত্রসারের মত গ্রন্থও লেখা হয়েছে|তন্ত্রের উদ্দেশ্যে সাধক কে জাগতিক মোহো মায়া থেকে মুক্তি দিয়ে জন্ম মৃত্যুর আবর্ত থেকে মুক্ত করা|আবার কিছু ক্ষেত্রে তন্ত্র সাধনা থেকে অলৌকিক শক্তি উৎপন্ন করে সাধক জাগতিক সমস্যার সমাধানও খুঁজে দিতে পারেন যার একাধিক উদাহরন রয়েছে ইতিহাসে|কমলাকান্ত অমাবস্যার রাতে রাজাকে চাঁদ দেখিয়েছিলেন, বামা ক্ষ্যাপা অসুস্থ মানুষকে অলৌকিক উপায়ে সুস্থ করেছিলেন এমনকি কোনো এক অতীন্দ্রিয় শক্তির দ্বারা ত্রৈলঙ্গ স্বামী চুনকে দইয়ে পরিনত করে ছিলেন|তন্ত্র শাস্ত্রের মহিমা অপার|জ্যোতিষ শাস্ত্রেও শাস্ত্রীয় প্রতিকার রূপে যুগ যুগ ধরে ব্যাবহার হয়ে আসছে এই তন্ত্র|আমি নিজে ব্যাক্তিগত ভাবে এই শাস্ত্রের সফল প্রয়োগের সাক্ষী থেকেছি বহুবার|বলবো সব কথা|পর্বে পর্বে|পড়তে থাকুন|যেকোনো জ্যোতিষ সংক্রান্ত সমস্যানিয়ে কথা বলতে চাইলে বা সাক্ষাৎ করতে চাইলে যোগাযোগ করুন উল্লেখিত নাম্বারে|ভালো থাকুন|ধন্যবাদ|