পুরান রহস্য – বর্বরিকের কথা

770

কুরুক্ষে যুদ্ধের একটি পর্যায়ে ভগবান শ্রীকৃষ্ণ বারবারিকের কাটা মাথা জীবিত করে একটি পাহাড়ে স্থাপন করলেন। তিনি বললেন “হে মহান বর্বরিক তোমার এই মস্তক সর্বদা জীবিত থাকবে এবং তুমি সবকিছু দেখবে। কলিযুগে তোমার পূজা হবে এবং তোমার পূজা আমার পূজা বলেই আমি গ্ৰহন করবো। তুমি এই রূপে আমার নামেই পরিচিত হবে, সকলে তোমায় খাটুশ্যাম নামে ডাকবে আর তুমি তোমার শরনাপন্ন সকল দুর্বলের সহায় হবে।” এই বর্বরিক ভগবানের মুখ থেকে শ্রীমদ ভগবত গীতা শুনেছিলেন এবং ভগবানের বিশ্বরূপও দর্শন করেছিলেন।বর্তমানে রাজস্থানে তার মন্দিরও আছে|

কিন্তু কে এই বারবারিক এবং কেনো তার সাথে এমন করেছিলেন ভগবান কৃষ্ণ?আজকের পুরান রহস্য তাকেই উৎসর্গ করলাম,জানাবো তার বীরত্বর কাহিনী|মূলত ‘স্কন্দ পুরাণে’ বর্বরিকের উল্লেখ পাওয়া যায়।বর্বরিক “ভীমের পৌত্র ও ঘটোৎকচের পুত্র ছিলেন, বর্বরিকের মাতার নাম মৌরবি।”

মহাভারতে উল্লেখ আছে “বর্বরিক নবদূ্র্গার উপাসনা করে তিনটি অমোঘ বাণ লাভ করেছিলেন। এই বাণগুলী দ্বারা সে যাদের চিহ্নিত করবে, তারা যত সংখ্যকই হোক সেই বাণ তাদের বিনাশ করে আবার তার কাছে ফিরে আসবে।”
কুরুক্ষেত্র যুদ্ধ চলাকালীন, বর্বরিকের পিতামহী ‘হিডিম্বাকে’ তিনি কথা দিয়েছিলেন যে দুর্বল পক্ষের হয়েই তিনি যুদ্ধ করবেন। কারন হিড়িম্বা ভেবেছিলেন পান্ডবপক্ষ দুর্বল। কিন্তু এটাই হলো তার কাল। পান্ডবগন যখন জানতে পারলেন যে বর্বরিক তার অমোঘ বাণ দ্বারা এক নিমেষে যুদ্ধ সমাপ্ত করতে পারে তখন তারা খুবই আনন্দিত হলেন।’

কিন্তু ভগবান শ্রীকৃষ্ণ তাকে দেখালেন যে তার প্রথম বাণ সন্ধানের ফলে সম্পুর্ণ কৌরব সেনার নাশ হয়ে গেলেও ‘ভীষ্ম, কৃপাচার্য ও অশ্বত্থামা’ সুরক্ষিত থাকতেন ফলে তখন কৌরব পক্ষ দুর্বল হয়ে যাবে আর বর্বরিক তখন তার প্রতিজ্ঞার কারনে দ্বিতীয় বাণ দ্বারা পান্ডব পক্ষের বিনাশ করতে বাধ্য হবে। যার পরিনাম হবে শুধুই বিনাশ।

এই পরিনাম দেখার পর স্বেচ্ছায় তার অমোঘ বাণ দ্বারা নিজের মস্তক “ভগবান শ্রীকৃষ্ণের চরনে অর্পন করেন।” অবশ্য অর্পন করার আগে তিনি শেষ ইচ্ছা হিসেবে বলেন যে তিনি সম্পুর্ণ যুদ্ধ দেখতে চান।তাই ভগবান কৃষ্ণ তার প্রার্থনা মেনে নিয়ে তার মাথা পাহাড়ে প্রতিষ্ঠিত করে ছিলেন|বারবারিক সমগ্র কুরুক্ষেত্র যুদ্ধে দেখেছিলেন|শুধু তাই না তিনি মহাভারতের এক উপেক্ষিত বীর এবং ব্যতিক্রমী চরিত্র যার সম্পর্ক খুব কমই জানা যায়|

আজ পুরান রহস্য এইটুকুই|আগামী পর্বে আবার কলম ধরবো নতুন কোনো বিষয় নিয়ে|পড়তে থাকুন|চেম্বার হোক বা অনলাইন ভাগ্যবিচার ও জ্যোতিষ পরামর্শর জন্যে উল্লেখিত নাম্বারে যোগাযোগ করুন|ভালো থাকুন|নমস্কার|