বাংলার কালী – বোল্লা কালী মন্দির

272

একটি প্রতিকূল পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে আমরা এগিয়ে চলেছি , সামাজিক ও অর্থনৈতিক জীবনের পাশাপাশি এই প্রতিকূলতার প্রভাব পড়েছে আমাদের আধ্যাত্মিক ও ধর্মীয় ক্ষেত্রেও কারন তারাপীঠ, কামাখ্যা সহ দেশের প্রায় সব মন্দিরই বন্ধ|আবার সামনেই ফলহারিনী অমাবস্যা,এই সময় জ্যোতিষ ও তন্ত্র জগতে একটি বিশেষ সময়, আপনাদের জানিয়ে রাখি বিগত বছরের ন্যায় এবছরও আপনাদের হৃদয়েশ্বরী মা সর্বমঙ্গলার মন্দিরে অমাবস্যা উপলক্ষে বিশেষ পুজো, হোম যজ্ঞ ও গ্রহ দোষ খণ্ডনের ব্যবস্থা থাকছে,সেই সংক্রান্ত তোড়জোড় নিয়ে এখন থেকেই কিছুটা ব্যাস্ত হয়ে পড়েছি|তার ফাঁকেই আজ বাংলার একটি অন্যতম জাগ্রত ও বিখ্যাত কালী মন্দিরের কথা আপনাদের বলবো|আজকের পর্বে বোল্লা কালী মন্দির|

বোল্লা কালীমন্দির আমাদের পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার একটি বিখ্যাত কালী মন্দির। বালুরঘাট শহর থেকে এই মন্দিরের দূরত্ব মাত্র কুড়ি কিলোমিটার|মন্দিরটি দক্ষিণ দিনাজ পুরের বোল্লা গ্রামে অবস্থিত এবং মূলত গ্রামের নাম থেকেই বোল্লা কালী মন্দিরের নামকরণ|

আজ থেকে চারশো বছর এই অঞ্চলের জমিদার ছিলেন বল্লভ চৌধুরি|তার নাম অনুসারেই এলাকার নাম হয়েছে বোল্লা|মন্দির প্রতিষ্ঠার সাথেও জড়িয়ে আছে এক অলৌকিক ঘটনা|কথিত আছে একবার স্থানীয় জমিদার মুরারী মোহন চৌধুরি ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির সঙ্গে মামলায় জড়িয়ে যান। তারপর তিনি বোল্লা মায়ের কাছে মানত করে মামলায় জয় লাভ করেন শোনা যায় দেবী কালি স্বয়ং তার উদ্ধারের জন্য এসেছিলেন এবং পরবর্তী দিনই জমিদার মুক্তি পেয়েছিলেন|কৃতজ্ঞতার প্রতীক হিসাবে তিনি দেবী কালির একটি সুদৃশ্য মন্দির নির্মাণ করেছিলেন|

যদিও অনেক আগে থেকেই এখানে কালী পুজোর প্রচলন ছিলো|বহুকাল আগে এখানে এক মহিলা স্বপ্নাদেশে একটি কালো পাথরখণ্ড কুড়িয়ে পেয়ে সেটিকে প্রথম মাতৃরূপে পুজো শুরু করেছিলেন|

কথিত আছে একবার এই এলাকায় পরপর ডাকাতের অত্যাচার শুরু হয়, বোল্লাকালী তখন রুদ্রমূর্তি ধারণ করে বাসিন্দাদের রক্ষা করেন।

বর্তমানে রাস পূর্ণিমা উপলক্ষে দক্ষিণ বোল্লা কালী মন্দিরে পুজো ও বিরাট মেলা অনুষ্ঠিত হয়|সমগ্র উত্তর বঙ্গ সহ বাংলা দেশ থেকেও বহু মানুষ আসেন মা বোল্লা কালীর দর্শন করতে ও তার পুজোয় অংশ নিতে|জনশ্রুতি অনুসারে, দেবী অত্যন্ত জাগ্রত ও তার কাছে নিবেদিত প্রতিটি মনোস্কামনা তিনি পূর্ণ করেন|

অন্তরে আস্থা ও শ্রদ্ধা থাকলে মা কাউকে খালি হাতে ফেরান না, এ আমি একজন সর্বমঙ্গলা মায়ের উপাসক হিসেবে নিজের বহুবার ব্যাক্তিগত ভাবে অনুভব করেছি, সাক্ষী থেকেছি বহু অলৌকিক অভিজ্ঞতার|মাকে ডাকুন তিনিই পারেন আমাদের সব বিপদ থেকে রক্ষা করতে|জ্যোতিষ সংক্রান্ত বিষয়ে কথা বলতে চাইলে উল্লেখিত নাম্বারে ফোন করে নেবেন|ভালো থাকুন|ভালো থাকুন|ধন্যবাদ|