ফল হারিণী অমাবস্যা ও তন্ত্রশাস্ত্র

136

জ্যোতিষ ও তন্ত্র জগতের সর্বাপেক্ষা গুরুত্বপূর্ণ ও দুর্লভ তিথি ফল হারিণী অমাবস্যা তিথি।হিন্দু পঞ্জিকা অনুসারে এই বছরে ফলহারিণী কালী পুজোর দিন পড়েছে আগামী ১৮ তারিখ। তবে পরদিন অর্থাৎ ১৯ মে পর্যন্ত থাকবে অমাবস্যা তিথি।আজকের পর্বে জানাবো কেনো তন্ত্র জগতে এই তিথি এতো গুরুত্বপূর্ণ।

সহজ ভাষায় বলতে গেলে জ্যৈষ্ঠমাসের অমাবস্যা তিথিতে ফলহারিণী মাতারূপে দেবী কালী পূজিতা হন।অনেকেই ভাবেন ধরিত্রীজাত ফলের সঙ্গে এই মাতৃপুজোর সম্পর্ক আছে কিন্তু আসলে এই ফল সেই ফল নয় এই ফল মানবজাতির কর্মফলের কথা স্মরণ করায়।

জ্যৈষ্ঠমাসের অমাবস্যা তিথিতে ফলহারিণী মাতারূপে দেবী কালী পূজিতা হন।এই দিন আমরা যদি মা কালীর পুজো করি, এবং তাঁর সঙ্গে বিশেষ কিছু কাজ করি, তা হলে আমাদের সৌভাগ্য ও সুখ সমৃদ্ধি ফিরে আসতে পারে। এই বিশেষ তিথিতে যদি আমরা মা কালীকে সন্তুষ্ট করতে পারি, তা হলে তাঁর আশীর্বাদ সর্বদা আমাদের ওপর থাকবে।

দক্ষিনেশ্বরে থাকা কালীন ঠাকুর রামকৃষ্ণদেব ফলহারিণী কালী পুজোর দিনই স্ত্রী সারদা দেবীকে মাতৃ রূপে পুজো করেছিলেন। সেই ফল হারিণী অমাবস্যা তিথিতে শ্রীমা সারদাকে ষোড়শীরূপে পুজো করেছিলেন বলে আজও রামকৃষ্ণমঠ ও আশ্রমে এই পুজো ‘ষোড়শী’ পুজো নামে পরিচিত|

ফল হারিণী অমাবস্যা তিথিতে মাতৃ শক্তির আরাধনা করলে সন্তানের কুকর্মের জন্য উদ্ভূত অশুভ ফলের প্রভাব থেকে আদ্যা শক্তি মহামায়া তার সন্তানদের মুক্ত করেন এবং তাদের জীবনের সব জাগতিক বাঁধা বিপত্তি দূর হয়।

জ্যোতিষ ও বিশেষ করে তন্ত্রের জগতে এই দিনের অন্য মাহাত্ম রয়েছে, যেকোনো তন্ত্র ক্রিয়া যেমন বশীকরণ, বিদ্বেষন এই দিনে করলে তা অনেক বেশি প্রভাবশালী হয় আবার শাস্ত্র মতে যেকোনো অশুভ গ্রহদোষ খণ্ডন বা কোনো বিশেষ প্রতিকার গ্রহণের ক্ষেত্রে এই অমাবস্যাকে অন্যতম শ্রেষ্ঠ হিসেবে দেখা হয়|

স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন ওঠে কেনো এই তিথি এতো গুরুত্বপূর্ণ। তার কারন হলো তন্ত্রে স্থান কাল এবং পাত্র খুবই গুরুত্বপূর্ণ।তাই তন্ত্র কার্য সম্পাদন করার জন্য যুগে যুগে সাধকরা তারাপীঠ বা কামাখ্যার মতো পবিত্র ও সিদ্ধ স্থান বেছে নেন। আবার কাল অর্থাৎ সময় হিসাবে ফল হারিণী অমাবস্যা তিথি তন্ত্র মন্ত্রের জন্য সর্বাপেক্ষা শ্রেষ্ঠ। আর পাত্র অর্থাৎ সাধকের পবিত্রতা তার শাস্ত্র সম্মত জীবন যাত্রা এবং নিষ্ঠা ও ভক্তির উপর নির্ভর করে সাফল্যর পরিমান।

তাই প্রতি বছরের ন্যায় এবছর ও তারাপীঠ এবং আপনাদের মা হৃদয়েশ্বরী সর্ব মঙ্গলা মন্দিরে বিশেষ হোম যজ্ঞ পুজো ও শাস্ত্র মতে গ্রহ দোষ খন্ডনের সব ব্যাবস্থা থাকবে।আমি নিজে উপস্থিত থাকছি তারাপীঠে।

দুর্লভ এই তিথি আপনাদের জীবনের সব গ্রহ গত সমস্যা দূর করে জীবনের চলার পথ সুন্দর ও সুগম করবেই

ফিরে আসবো পরের পর্বে ফল হারিণী অমাবস্যা নিয়ে আরো অনেক কথা বলার আছে। পাশাপাশি সারা সপ্তাহ জুড়েই থাকবে দেবী মাহাত্ম ও মন্দির রহস্য নিয়ে অনুষ্ঠান। পড়তে থাকুন।ভালো থাকুন। ধন্যবাদ।