মন্দির রহস্য – দুর্লভ ঠাকুরের মন্দিরের রহস্য

63

বাংলার প্রায় প্রতিটি কালী মন্দিরেই ফল হারিণী অমাবস্যায় বিশেষ পুজোর আয়োজন করা হয়।দুই বাংলা জুড়েই আছে এমন অদ্ভুত সব মন্দির যেখানে প্রায় প্রত্যেক বিশেষ বিশেষ তিথিতে ধুম ধাম করে পুজো হয় তাদের মধ্যে কিছু আছে জনপ্রিয় এবং প্রসিদ্ধ আবার কিছু মন্দির রয়ে গেছে প্রচারের আড়ালে। দুর্লভ ঠাকুরের মন্দির এমনই এক রহস্য ময় ঐতিহাসিক মন্দির যা নিয়ে খুব একটা লেখা লেখি বা আলোচনা হয়না।আজকের পর্বে তাই এই মন্দিরের কিছু অজানাঐতিহাসিক তথ্য আপনাদের সামনে তুলে ধরবো।সে প্রায় তিনশো বছর আগের কথা অবিভক্ত বাংলায় জন্মে ছিলেন অলৌকিক ক্ষমতা সম্পন্ন আধ্যাত্মিক ব্যাক্তিত্ব দুর্লভ ঠাকুর।অধুনা বাংলা দেশের নবীগঞ্জ উপজেলার আলমপুর গ্রামের চুড়ামনি সুত্রধরের গৃহে জন্মগ্রহন করেন তিনি।শৈশবে তাঁর নাম ছিল দেবাই রাম।বাল্য কালে শেরপুরের বনগাঁও এলাকায় দুর্লভ ঠাকুর গরু চড়াতেন এবং এই স্থানেই রাত্রী যাপন করতেন। শোনা যায় খুব কম বয়সে তার মধ্যে অলৌকিক ক্ষমতার বিকাশ ঘটে যার সাক্ষী থাকে স্থানীয় মানুষ এবং এক বিশাল বঠবৃক্ষ পরবর্তীতে ওই বট বৃক্ষর কাছেই তৈরী হয় দুর্লভ ঠাকুরের মন্দির।নিজের মন্দিরে সাধনা করতেন দুর্ল ঠাকুর। শোনা যায় তার অভিশাপে একবার এক প্রভাবশালী জমিদারের সাত পুত্রের মৃত্যু হওয়াতে জমিদার হাসান ঠাকুরের সন্ধানে বের হন এবং ঠাকুরের এই মন্দিরে এসে উপস্থিত হন। জমিদারের উপস্থিতি টের পেয়ে দুর্লভ ঠাকুর মন্দিরের সামনের খালের জলে ঝাপ দেন ও অদৃশ্য হয়ে যান । সেই থেকে দুর্লভ ঠাকুরের আার কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নিবহুকাল লোক চক্ষুর অন্তরালে থাকার পর দুর্লভ ঠাকুরের মন্দিরে পুনরায় উদ্ধার হয় একটি স্বপ্নাদেশের মাধ্যমে।স্বপ্নে নির্দেশ পেয়ে স্থানীয় এক পূজারী ঠাকুরের অলৌকিক মন্দিরের অস্তিত্ব খুজে বের করেন। নতুন করে মন্দির সংস্কার হয় এবং পুজো শুরু হয়।বর্তমানে সেই মন্দির ও বটবৃক্ষ সনাতন ধর্মের ধর্মালম্বীদের কাছে একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থান অদ্যাবদি মনে করা হয় মন্দিরে এসে কায়মনচিত্তে ভক্তরা যা চায় তা পূর্ন হয়। দূর্লভ ঠাকুরের পূণ্য লীলা ভূমির অলৌকিক বটবৃক্ষ ও মন্দিরকে ঘিরে প্রতি বছর অনুষ্টিত মহাউৎসবে প্রায় পঞ্চাশ হাজারেও অধিক মানুষের জনসমাগম হয়।পরবর্তী পর্বে ফিরে আসবো দেবী মাহাত্ম নিয়ে। আলোচনা চলতে থাকবে ধারাবাহিক ভাবেমন্দির রহস্য নিয়েও। আসন্ন ফল হারিণী অমাবস্যায় গ্রহ দোষ খণ্ডন করাতে এখনই যোগাযোগ করুন।পড়তে থাকুন। ভালো থাকুন।ধন্যবাদ।