কালী কথা – পর্ব এক

162

দুর্গাপূজার পরই গোটা দেশ ও বাংলা মেতে ওঠে কালী আরাধনায়, আর কিছুদিন পরেই সেই বহু প্রতীক্ষিত তিথি অর্থ্যাৎ দীপান্বিতা অমাবস্যা|আশ্বিন মাসের অমাবস্যা তিথিতে দীপান্বিতা কালীপূজা বিশেষ জাঁকজমক সহকারে পালিত হয়। এছাড়া মাঘ মাসে রটন্তী কালীপূজা ও জ্যৈষ্ঠ মাসে ফলহারিণী কালীপূজাও বিশেষ জনপ্রিয়। অনেক জায়গায় প্রতি অমাবস্যা এবং প্রতি মঙ্গলবার ও শনিবারে কালীপূজা হয়ে থাকে, তবে তন্ত্রে ও জ্যোতিষ জগতে এই দীপান্বিতা অমাবস্যা সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ|তাই এখন থেকে দীপাবলী অবধি দেবী কালী কে নিয়ে ধারাবাহিক লেখালেখি চলবে, কালী কথার এক একটি পর্বে আলোচনা করবো দেবী কালীর রূপ নিয়ে, পুরান মতে দেবীর উৎপত্তি নিয়ে এবং কালী সংক্রান্ত যা কিছু তথ্য ও ব্যাখ্যা শাস্ত্রে আছে তা সহজ সরল ভাবে উপস্থাপন করবো আপনাদের সামনে|সহজ ভাবে দেবী কালীর পরিচয় দিতে গেলে বলতে হয়, কালী বা কালিকা তাঁর অন্য নাম শ্যামা বা আদ্যাশক্তি। প্রধানত শাক্ত সম্প্রদায় কালীপূজা করে থাকে। তন্ত্র অনুসারে, কালী দশমহাবিদ্যা নামে পরিচিত।শাস্ত্রে বলা আছে, কালী দুর্গার ললাট থেকে উৎপন্না হয়েছে, এই বাক্যের তাৎপর্য যে, ললাটের সংকোচনেই ক্রোধভাব প্রকাশিত হয় বলে সদা ক্রোধান্বিতা,রণরঙ্গিনী করাল-বদনা কালীকে ললাট-সম্ভবা বলা হয়েছে। বাস্তবিক কালীও দুর্গার রূপান্তর বিশেষ। ক্রোধাবস্থাপন্না শক্তিকেই কালী বলা হয়েছে।কালী নাম ও এক রহস্য, কাল-এর স্ত্রীলিঙ্গ হল কালী। আর শিব-কেও কাল নামে ডাকা হয়। কাল মানে অনন্ত সময়। এই সময়েরই স্ত্রীলিঙ্গ বোধক হচ্ছে কালী। শাস্ত্রে উল্লেখ করা হয়েছে যে যে কাল সর্বজীবকে গ্রাস করে, সেই কালকে আবার যিনি গ্রাস করেন-তাঁকেও কালী বলা হয়।জগতের উৎপত্তি, স্থিতি, মহাপ্রলয়-এর পিছনে রয়েছে কালশক্তি। সবচেয়ে মজার কথা এই সবের জন্য যে মহাকাল পরিস্থিতির উদ্ভূত হয় তাই আবার সব সৃষ্টিকে গ্রাস করে। সনাতন ধর্মে উল্লেখ যে মহাকালেরও পরিণাম আছে। মহাপ্রলয়ের কালশক্তি মহাকালীর ভিতরেই নিঃশেষ লীন হয়ে যায়।তন্ত্র এবং আধ্যাত্মিক জগতে দেবী কালীর মহাত্মা অপরিসীম, আবার আগামী পর্বে ফিরে আসবো নতুন তথ্য ও ব্যাখ্যা নিয়ে,পড়তে থাকুন এবং জানান এই কালী কথা নিয়ে আপনাদের গুরুত্বপূর্ণ মতামত|এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখি তন্ত্র মতে গ্রহ দোষ খণ্ডন ও প্রতিকারের জন্যে এই সময় শ্রেষ্ঠ সময়, দীপান্বিতা অমাবস্যায় মা হৃদয়েশ্বরী সর্বমঙ্গলা মন্দিরে অসংখ্য মানুষের গ্রহ দোষ খণ্ডন হবে তবে তার আগে প্রয়োজন সঠিক ভাগ্যবিচার|জ্যোতিষ সংক্রান্ত যেকোনো সমস্যা নিয়ে যোগাযোগ করতে পারেন উল্লেখিত নাম্বারে|ভালো থাকুন|ধন্যবাদ|