কালী কথা – পর্ব দুই

143

কালী কথার প্রথম পর্বে দেবী কালী সংক্রান্ত কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ও কিছু শাস্ত্রীয় ব্যাখ্যা আপনাদের সামনে এনেছি, আজ দ্বিতীয় পর্বে আলোচনা করবো পুরান অনুসারে দেবী কালীর জন্ম বা সৃষ্টি তত্ব নিয়ে|

কালীর সৃষ্টি হয়ে ছিলো একটি বিশেষ উদ্দেস্যে |স্বর্গ তোলপাড় করে লন্ডভণ্ড করে দিচ্ছে অসুরের দল। দেবতাদের তাড়িয়ে স্বর্গরাজ্যের দখলের চেষ্টাও করছে তারা। দেবতাদের মধ্যে ত্রাহি-ত্রাহি রব। অসুরদের প্রধান রক্তবীজ-ৃএর ছিল ব্রহ্মার বর। যার জেরে রক্তবীজের শরীর থেকে এক ফোঁটা রক্ত ভূতলে পতিত হলেই তা থেকে জন্ম নিচ্ছিল একাধিক অসুর।এই পরিস্থিতিতে কার্যত দিশেহারা দেবতারা|

এই বিপদ থেকে স্বর্গ-কে রক্ষা করতে এবং দেবতার মানসম্মান রক্ষার্থে অবতীর্ণ হন দেবীদুর্গা। সব অসুর দেবীদুর্গার হাতে নিহত হলেও ব্রাক্ষ্মার বরপ্রাপ্ত রক্তবীজ বারবার বেঁচে যায়।

অবশেষে ক্রোধাম্বিত দেবীদুর্গা তাঁর ভ্রু যুগলের মাঝ থেকে জন্ম দেন কালীকে। কালীর ভয়াবহ রুদ্রমূর্তি আর নগ্নিকা রূপে নিহত হতে থাকে একের পর এক অসুর। রক্তবর্ণ লকলকে জিভ বের করে কালী গ্রাস করে নিতে থাকেন একের পর অসুর এবং তাদের রণবাহিনীকে। হাতি, ঘোরা সমতে অসুরের দলকে কালী গ্রাস করতে থাকেন। রক্তবীজকে অস্ত্রে বিদ্ধ করে তার শরীরের সমস্ত রক্ত পান করে নেন কালী। রক্তবীজের শরীর থেকে একফোঁটা রক্ত যাতে মাটিতে না পরে সেজন্য কালী তাকে শূন্যে তুলে নেন। রক্তবীজকে এক্কেবারে রক্তশূন্য করে দেহ ছুঁড়ে ফেলে দেন|শান্ত হল ব্রম্হান্ড |রক্ষা পেলো সৃষ্টি|

আগামী পর্বে আরো বিস্তারিত আলোচনা করবো দেবী কালীর রূপ ও তার মহাত্ম নিয়ে|এই পর্ব থেকে বিদায় নেয়ার আগে জানিয়ে রাখি আগামী দীপান্বিতা অমাবস্যায় আপনাদের মা হৃদয়েশ্বরী সর্বমঙ্গলার মন্দিরের বিশেষ পুজো, হোম যজ্ঞ ও গ্রহ দোষ খণ্ডন সম্পন্ন হবে|আগ্রহীরা আগাম যোগাযোগ করুন উল্লেখিত নাম্বারে ও সরাসরি কথা বলুন আমার সাথে|ভালো থাকুন|নমস্কার|