শ্রাবন মাসের আধ্যাত্মিক গুরুত্ব

53

কথা দিয়েছিলাম পবিত্র শ্রাবন মাসে আমার অনুষ্ঠানে থাকবে শিব ও শ্রাবন মাসের আধ্যাত্মিক গুরুত্ব নিয়ে নানা তথ্য ও পৌরাণিক ব্যাখ্যা এবং প্রতিটি পর্বে থাকবে কিছু গুরুত্বপূর্ণ শাস্ত্রীয় উপাচার যা আপনাদের কাজে লাগবে|আসুন আজ শুরু করা যাক শ্রাবন মাসের আধ্যাত্মিক গুরুত্ব দিয়ে|আমাদের সনাতন ধর্মে এই শ্রাবন মাসটি শিবকে উত্সর্গ করা হয়। শ্রাবণ মাসের প্রতি সোমবার শিবের পুজো করা জন্য শিব ভক্তরা অধীর আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষা করে থাকেন এবং শ্রাবন মাসে শিবের বিশেষ পুজোর রীতি প্রচলিত আছে।চলতি বছর 18 জুলাই থেকে শ্রাবণ মাস শুরু হয়েছে এবং শেষ হবে 17 অগস্ট ও এই বছর শ্রাবন মাসের পাঁচটি সোমবার রয়েছে|শ্রাবণের প্রথম সোমবার – ১৮ জুলাইশ্রাবণের দ্বিতীয় সোমবার – ২৫ জুলাইশ্রাবণের তৃতীয় সোমবার -১ আগস্টশ্রাবণের চতুর্থ সোমবার – ৮ আগস্টশ্রাবণের পঞ্চম সোমবার – ১৫ আগস্ট পুরান অনুসারে করা হয় যে, শাওয়ান মাসে শিব-পার্বতী , উভয়েই মর্ত্যে নেমে এসে পৃথিবী ভ্রমণ করেন ও ভক্তদের প্রার্থনায় সাড়া দিয়ে আর্শীবাদ করেন।আবার এই শ্রাবন মাসেই হয়েছিলো সমুদ্র মন্থন এবং সেই সমুদ্র মন্থন থেকে উঠে আশা বিষ থেকে বিশ্ব কে রক্ষা করতে মহাদেব স্বয়ং সেই বিষ কণ্ঠে ধারন করেছিলেন|বিষের প্রভাবে কণ্ঠ নীল বর্নে রূপান্তরিত হয় এবং মহাদেবের আরেকটি নাম হয় নীলকণ্ঠ|শ্রাবণ শিবের অত্যন্ত প্রিয় মাস এবং হিন্দুদের কাছে অত্যন্ত পবিত্র একটি মাস যার জ্যোতিষচর্চা, আধ্যাত্মিকতা সব দিক থেকেই সমান মাহাত্ম্য রয়েছে। এই মাসে বেশ কিছু শাস্ত্রীয় উপাচার রয়েছে যা বিশ্বাস নিয়ে সঠিক ভাবে পালন করলে যাবতীয় মনস্কামনা পূরণ হয়।শ্রাবন মাসেই পালিত হয় মঙ্গলা গৌরী ব্রত|বিবাহিত মহিলারা শ্রাবণ সোমবারের উপবাস রাখেন এবং শিবের কাছ থেকে সৌভাগ্য প্রার্থনা করেন। অনেকে আবার এই মাসের প্রথম সোমবার থেকে ষোলো সোমবারের উপবাস শুরু করেন। এই মাসের বিশেষ গুরুত্ব হল, এ সময় মঙ্গলবার পার্বতীর জন্য উপবাস রাখা হয়। এটি মঙ্গলা গৌরী ব্রতর প্রধান অঙ্গ বলে পরিচিত। মনে করা হয়, শ্রাবণ মাসের সোমবারের উপবাস রাখলে ও শিবের অভিষেক করলে সুখ-সমৃদ্ধি লাভ হয়। আবার অবিবাহিতারা শ্রাবণের সোমবারের উপবাস রাখলে ও মহাদেবের পুজো করলে পছন্দের জীবনসঙ্গী পেতে পারেন এবং যারা অবিবাহিত বা বিবাহিত জীবনে কোনো সমস্যা রয়েছে তারা এই ব্রত করলে ভালো ফল পাবেন|যারা এই ব্রত কোনো কারনে পালন করতে পারবেন না তারা একটি সহজ পদ্ধতিতে শিবকে সন্তুষ্ট করতে পারেন জল ও একটি বেলপাতা অর্পণ করলেই শিবকে প্রসন্ন করা যায়। শ্রাবণের সোমবারে সকালে তাড়াতাড়ি উঠে স্নান করে শিব মন্দিরে যান। শিব ও পার্বতীকে পুজোর সমস্ত উপকরণ অর্পণ করুন। শিবকে জলাভিষেক করার সময় শিব মন্ত্র জপ করুন|শ্রাবন মাসে কিছু সহজ ঘরোয়া শাস্ত্রীয় উপাচার পালন করেও আপনারা এই শ্রাবন মাসে শিব কৃপা লাভের মাধ্যমে জীবনের অনেক সমস্যা কাটিয়ে উঠতে পারেন|শ্রাবণ রুদ্রাক্ষ ধারণের জন্য প্রশস্ত সময়।এছাড়া বাড়িতে কষ্টি পাথরের বা পারদের শিব লিঙ্গ স্থাপন করতে পারেন কোনো বাস্তু দোষ থাকলে দূর হবে এবং আর্থিক সমস্যায় ভালো ফল পাবেন|শ্রাবণে শিবলিঙ্গে বিল্বপত্র প্রদানের একটি নিয়ম রয়েছে। এই মাসের অষ্টমী, চতুর্থী, নবমী, অমাবস্যা, সংক্রান্তি ও সোমবারগুলিতে বিল্বপত্র শিবের মাথা থেকে নামাতে নেই বলে শাস্ত্রে উল্লেখ আছে ।সোমবারের পুজো করার সময় মহাদেবকে চাল অর্পন করতে ভুলবেন না। পুজোর সময় চাল অর্পন করলে আর্থিক সমস্যা কমে যায় এবং অর্থ বৃদ্ধি পেতে থাকে। সেই সঙ্গে হঠাৎ করে মাইনে বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনাও থাকে।জীবনে খারাপ ঘটনা এড়াতে মহাদেবের পুজোর সময় যব অর্পন করুন। এর ফলে জীবনে অনেক দুর্ঘটনার হাত থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে। রবিবার মহাদেবের পুজোয় গম অর্পন করা খুব ভাল। এর ফলে দাম্পত্য জীবন সুখের হয়|শ্রাবনের শনিবার মহাদেবকে তিল অর্পন করুন। কারণ এই জিনিসটি মহাদেবের বেজায় পছন্দের জিনিস। তিল অর্পন করার সময় মহামৃত্যুঞ্জয় মন্ত্র উচ্চারণ করলে সুফল তাড়াতাড়ি পাওয়া যায়। শরীর থেকে রোগ নিরাময় হয়ে যায়।জীবনে সব রকম বাধা কাটাতে এবং যে কোনও ক্ষতির আশঙ্কা কমাতে মহাদেবকে বুধবার সবুজ মুগ ডাল অর্পন করতে হবে। এই নিয়ম করলে মনের ইচ্ছে দ্রুত পূরণ হয়।শ্রাবন মাসে সহজ এই উপাচার গুলি পালন করুন ভালো ফল পাবেন|আগামী দিনে শ্রাবন মাস ও শিব সংক্রান্ত নানা তথ্য ও আরো গুরুত্বপূর্ণ সব শাস্ত্রীয় উপাচার আপনাদের সামনে তুলে ধরবো|থাকবে পৌরাণিক ঘটনা ও আরো অনেককিছু|পড়তে থাকুন|ভালো থাকুন|ধন্যবাদ|